Breaking News
Home / খেলাধুলা / টাইগারদের ১১ দফা দাবিতে যা যা আছে

টাইগারদের ১১ দফা দাবিতে যা যা আছে

স্পোটর্স ডেস্ক: বেতন-ভাতা বাড়ানোসহ ১১ দফা দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সদস্যরা। দাবি না মানা পর্যন্ত কোনো ধরণের ক্রিকেট খেলবেন না বলে জানান ক্রিকেটাররা। নানা অসংগতি নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ওপর অসন্তোষ থেকে এ আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা।

২১ অক্টোবর, সোমবার সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে মিরপুরে বিসিবির একাডেমি মাঠে জড়ো হন খেলোয়াড়রা। সেখানে বিকেলে ৩টায় সংবাদ সম্মেলন করেন ক্রিকেটারা।

সংবাদ সম্মেলনে সব ক্রিকেটারের পক্ষ থেকে ১১ দফা দাবি তুলে ধরেন সাকিব-তামিম-মুশফিকরা।

১১ দফা দাবিগুলো হলো :

১. বছরব্যাপী সংশ্লিষ্ট দলের জন্য কোচ,ট্রেনার, ফিজিও কাজ করবেন ক্রিকেটারদের নিয়ে। এটা নিশ্চিত করা।

২. ক্রিকেটারদের যাতায়াত বাস,জিম ও সুইমিংপুল সহ হোটেল সুবিধা নিশ্চিত করা।যাতায়াতের বিমান সুবিধা দেয়া।লং রুটের জন্য প্রযোজ্য।

৩. ঘরোয়া লীগে ডেইলি এলাউন্স বাড়ানো, ম্যাচ ফি বাড়ানো। ৫০%বাড়ানোর দাবি সব লীগে।

৪. দেশি কোচিং স্টাফদের কাজের মূল্যায়ন ও পরিধি বৃদ্ধি করা। বয়সভিত্তিক  দলে দেশি কোন কোচ যোগ্য হলে তাকে নিয়োগ দেয়া পাশাপাশি কাজের সুযোগ দেয়া।

৫. ঘরোয়া ক্রিকেটে বিপিএলের পাশাপাশি একটি আলাদা টি–২০ ও ওয়ানডে ফরমেটে টুর্নামেন্ট আয়োজন করা।

৬. ১ম, ২য়, ৩য় বিভাগ ও প্রিমিয়ার ও জাতীয় লীগে আম্পায়ারিং এর মান ভাল থাকবে তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সংস্কার কাজ করা।সংগে আম্পায়ারদের পারিশ্রমিক বাড়ানো। একটি স্বাধীন আম্পায়ারিং কাঠামো প্রতিষ্ঠা করা।

৭. ক্রিকেটারদের ফিটনেস পরীক্ষা আলাদা আলাদা বিভাগে নেওয়ার ব্যাবস্থা  করা।তাদের অনুশীলন ও ঢাকামূখী না করে বিভাগীয় পর্যায়ে রেখে সুবিধাদি নিশ্চিত করা।

৮. গ্রাউন্ড ফেসিলিটিস ও মাঠের ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক মানের ভালো বল দিয়ে খেলা পরিচালনা নিশ্চয়তা। মাঠকর্মীদের মাসিক ভাতা বাড়ানো।

৯. ক্রিকেটারদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট  দেখার সংগঠন কেয়ারের বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পদত্যাগ দাবি ক্রিকেটাররা চুজ (ইলেকশন) করবেন কারা দায়িত্ব নেবেন এ সংগঠনের।

১০. বিপিএল যেন আগের সংস্করণে চালু হয়,দেশি ও বিদেশি ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক যেন সুষম(গ্রেড ভিত্তিক) হয়।

১১. জাতীয় লীগে ক্রিকেটারদের সংখ্যা বৃদ্ধি করতে হবে।

এসময় সাকিব বলেন, ‘বিপিএল, ডিপিএল কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের পারিশ্রমিক আগের মতো বাড়ানো হচ্ছে না। আমরা এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় খেলতে যাচ্ছি, টিম হোটেলে থাকছি। ন্যূনতম আমাদের যাতায়াতের ভালো ব্যবস্থা রাখা উচিত। হোটেলের জিম ব্যবস্থা, সুইমিং পুল ব্যবস্থা থাকতে হবে। এটা একজন পেশাদার ক্রিকেটারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

তামিম ইকবাল বলেন, ‘আমরা শুধু ক্রিকেট নিয়েই পড়ে থাকি। কিন্তু যদি একজন গ্রাউন্ডসম্যানের পারিশ্রমিকের কথা বলেন, সেটা কিন্তু বাড়ানো হচ্ছে না। তারা মাসে মাত্র ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পান। আমরা বাংলাদেশি কোচ প্রমোট করতে পারছি না। বাংলাদেশের ২০ জন কোচের সমান পারিশ্রমিক পান বিদেশি একজন কোচ। এছাড়া, দেশি একজন কোচের পারফর্ম ভালো হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাকে পরের ম্যাচে সুযোগ দেওয়া হয় না।’

সাকিব-তামিম-মুশফিক ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- মাহমুদউল্লাহ, মিরাজ, ইমরুল, সৌম্য, সাইফউদ্দিন, এনামুল বিজয়, মুমিনুল, মিঠুন, জুনায়েদ সিদ্দিকী, নুরুল হাসান সোহান, রনি তালুকদার, শফিউল ইসলাম, তাসকিন, মোস্তাফিজসহ অনেকে।

Check Also

ফ্লাড লাইটে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে : ভেট্টোরি

স্পোটস ডেস্ক: গোলাপি বলে ফ্লাড লাইটে খেলাটা ব্যাটসম্যানদের জন্য অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করেন …

%d bloggers like this: