Home / জাতীয় / রাজুর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

রাজুর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

নিউজ ডেস্ক: অবশেষে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা সত্যি হলো। এরশাদের শূন্য আসনের উপনির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউল করিম রাজু।

সোমবার রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জি এম সাহতাব উদ্দিনের কাছে থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন তিনি।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে রংপুর-৩ (সদর) আসন শূন্য হয়। এই আসনের উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দলের মনোনয়ন পান আওয়ামী লীগের নেতা রেজাউল করিম রাজু। আসনটি নিয়ে জাতীয় পার্টির সঙ্গে সমঝোতা হওয়ায় দলের সিদ্ধান্তে তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

এর আগের দুপুর আড়াইটার দিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করছেন- এমন খবরে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে স্থানীয় ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও রাজুর সমর্থকেরা। তারা রংপুর নগরীর কাচারী বাজার জিরো পয়েন্টে প্রধান সড়ক অবরোধ করেন।

এ সময় নগরীতে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। বিকেল ৩টার দিকে রাজু মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে গেলে নেতা-কর্মী ও সর্মথকরা তাকে বাধা দেয়। এক ঘণ্টার চেষ্টার পর রাজু সমর্থকদের বুঝিয়ে শান্ত করে নির্বাচন অফিসে গিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার শেষে রাজু সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ডেকে পাঠান। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- রাজনৈতিক কারণে তোমাকে মনোনয়ন দিয়েছিলাম। রাজনীতির বৃহত্তর স্বার্থে  মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে বললাম।’’

তিনি বলেন, ‘‘দলের প্রধানের নির্দেশে আমি প্রত্যাহার করলাম। সদর আসনে নৌকা প্রতীক না থাকলেও উন্নয়নের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রীর।’’

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময় জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৪ জুলাই এরশাদ মারা যান। ১ সেপ্টেম্বর রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। সেই অনুযায়ী, ভোট গ্রহণ হবে আগামী ৫ অক্টোবর। পুরো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে)।

Check Also

ভূমিকম্প ব্যবস্থাপনায় আগের চেয়ে সক্ষম বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক: ২০১৫ সালে প্রলয়ঙ্কারী ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠেছিলো হিমালয়-কন্যা নেপাল। যার কম্পন এসে নাড়া দিয়েছিলো …

%d bloggers like this: