Home / আর্ন্তজাতিক / ৫৪২ আসনে ৬, হারিয়ে যাওয়ার পথে ভারতের বামেরা

৫৪২ আসনে ৬, হারিয়ে যাওয়ার পথে ভারতের বামেরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: একসময়ের বাম দূর্গ হিসাবে পরিচিত পশ্চিমবঙ্গে এই প্রথম বামেরা কোন আসনই পায়নি। অবিভক্ত সিপিআই আমলে বা সিপিএমের জন্মের পর কখনওই এমন হয়নি। কোনও লোকসভা নির্বাচনেই বামেরা দু’অঙ্কের নীচে আসন পায়নি। এবার ভারতে ৫৪২ আসনের মধ্যে মাত্র ৬টি আসনে জিতেছে বাম ফ্রন্ট।

নির্বাচন কমিশনের প্রাথমিক হিসেবের উদ্ধৃতি দিয়ে ভারতের দৈনিক যুগশঙ্খ বলছে, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির ভোট এবার বেড়ে হয়েছে সাড়ে ৩৮ শতাংশ। ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস ৪৩ শতাংশ ভোট পেয়ে সর্বাধিক আসনে জিতেছে। আর বামদের ভোট নেমে এসেছে ৬ শতাংশে। তিন বছর আগের লোকসভা ভোটে বামফ্রন্ট পেয়েছিল প্রায় ২৬শতাংশ। বিজেপির ভোট তখন ছিল ১০.১৬%। অনেকেই মনে করছেন, বামেদের যে ২০শতাংশ ভোট ক্ষয় হয়েছে, তার পুরোটাই যোগ হয়েছে বিজেপির লাভের খাতায়।

রাজ্য রাজনীতির সমীকরণে বামফ্রন্ট এবং বিজেপি, দু’পক্ষেরই অবস্থান তৃণমূল-বিরোধী। বাংলায় লোকসভা নির্বাচনে এই দু’পক্ষের ভোট কেন মিশে গেল, তার তিন দফা কারণ উঠে এসেছে রাজনৈতিক শিবিরের প্রাথমিক পর্যালোচনায় বলে জানিয়েছে ভারতীয় দৈনিক যুগশঙ্খ পত্রিকা। প্রথমত, দেশে নরেন্দ্র মোদীর সরকারের প্রত্যাবর্তনকে ঠেকানোর চেয়েও রাজ্যে তৃণমূলের হাত দেওয়া বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন বাম কর্মী-সমর্থকেরা। দ্বিতীয়ত, কংগ্রেসের সঙ্গে জোট শেষ মুহূর্তে ভেস্তে যাওয়ায় হতাশা তৈরি হয়েছিল বাম শিবিরের বড় অংশে। কংগ্রেসের সঙ্গে থাকলে কেন্দ্রে বিকল্প সরকার গড়ার যে বার্তা দেওয়া যেত, তা সম্ভব হয়নি। এই হতাশাই বহু বাম সমর্থককে পদ্মমুখী করে তুলেছে। তৃতীয়ত, একর পর এক নির্বাচনে ব্যর্থ বাম নেতৃত্বের কোনও নিয়ন্ত্রণ কর্মী-সমর্থকদের উপরে কাজ করেনি। তাঁরাই এবার তৃণমূলকে শিক্ষা দেবেন, বিজেপি নেতৃত্বের এই প্রচারে বরং বাম কর্মী-সমর্থকেরা বেশি ভরসা রেখেছেন। ভাঙা সংগঠন নিয়েও যতটুকু কাজ করা যায়, তার বেশির ভাগটাই তলে তলে গেরুয়া শিবিরের পক্ষে গিয়েছে।

বৃহস্পতিবার ফল ঘোষণার পর সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরী এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এই হারের কারণ বের করে তা থেকে শিক্ষা নিয়ে পরবর্তী কর্মপন্থা সাজাবেন তারা। গত কয়েকদফায় ভোটের পর একই ধরনের কথা আসছে বাম নেতাদের কাছ থেকে; কিন্তু তাতেও পতন ঠেকছে না। ত্রিপুরার পর পশ্চিমবঙ্গ, এখন কেরালায়ও নিজেদের জমিন খুঁজে বেড়াতে হচ্ছে লাল পতাকাধারীদের।

এবার সিপিএম তিনটি, সিপিআই দুটি এবং আরএসপি একটি আসনে জিতেছে। পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরায় কোনো আসন নেই তাদের; মুখ রক্ষায় ভূমিকা রেখেছে তামিলনাড়ুর চারটি আসন, ডিএমকের সঙ্গে সমঝোতা করে।

কেরালায় বিজেপিবিরোধী স্রোত বইলেও তাতে লাভ হয়নি এক সময় ক্ষমতাসীন বাম ফ্রন্টের, ভোট গেছে কংগ্রেসে। রাজ্যটির ২০ আসনের ১৫টিই পেয়েছে কংগ্রেস। বামফ্রন্টের আসন কমে দুটি হয়েছে।

ত্রিপুরায় রাজ্য নির্বাচনে বিজেপির কাছে হেরে যাওয়ার পর লোকসভায় আর উঠে দাঁড়াতে পারেনি বাম ফ্রন্ট। দুটি আসনের সঙ্গে প্রায় ৫০ শতাংশ ভোটও গেছে তাদের পদ্মফুলে। বামরা পেয়েছে ১৭ শতাংশ ভোট, যা কংগ্রেসের চেয়ে ৮ শতাংশ পয়েন্ট কম।

লোকসভা নির্বাচনে বামেদের এমন রক্তক্ষরণ রাজনৈতিক শিবিরে প্রবল বিস্ময় তৈরি করছে। যে কারণে ভোটের আগে থেকে সামাজিক মাধ্যমে ঘুরতে থাকা স্লোগান এখন বাংলার রাজনৈতিক মানচিত্রে প্রতিষ্ঠিত তত্ত্ব ‘বামের ভোট রামে’।

Check Also

ইরানি বাহিনীর ব্রিটিশ যুদ্ধজাহাজ তাড়া করার ভিডিও ভাইরাল

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: পারস্য উপসাগরে একটি ব্রিটিশ যুদ্ধজাহাজকে তাড়া করেছে ইরানি দ্রুতগামী বোট। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে …

%d bloggers like this: