Home / খেলাধুলা / ২ বছরে ২২০ দিন ছুটি কাটিয়েছেন হাথুরু!

২ বছরে ২২০ দিন ছুটি কাটিয়েছেন হাথুরু!

স্পোর্টস ডেস্ক: বাংলাদেশের ক্রিকেটকে একের পর এক সাফল্যের পেছনের অন্যতম কারিগর প্রধান কোচ চন্দ্রিকা হাথুরুসিংহে। একটা সময় তিনি সবার নয়ণের মণি ছিলেন। তবে গত কয়েকমাস ধরে বেশ কিছু কারণে তিনি সমর্থকদের পছন্দের তালিকা থেকে আস্তে আস্তে সরে যাচ্ছেন। সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তিন ফরম্যাটে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর তার ছুটিতে যাওয়া নিয়ে মুখ খুলছেন খোদ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন!

ছুটিতে থাকা হাথুরু জাতীয় দলের সঙ্গে যোগ দেবেন আরও প্রায় দেড়মাস পর; ১২ ডিসেম্বর বিপিএলের পঞ্চম আসর শেষ হওয়ার পর। প্রোটিয়া সফরে ব্যর্থতা নিয়ে বিসিবি সভাপতির ভাষ্য ছিল, এমন একটা বিপর্যয়ের পর কোচ কোনো ব্যখ্যা-বিশ্লেষণ না করেই ছুটিতে চলে গেছেন। এমনকী হাথুরুকে ছুটি থেকে ডেকে পাঠিয়ে এমন ব্যর্থতার কারণ জিজ্ঞেস করার কথাও বলেছেন নাজমুল হাসান।

জাতীয় দলের কোচ হিসেবে ২০১৪ সালে প্রথমবারের মত দুই বছরের মেয়াদে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন চন্দ্রিকা হাথুরুসিংহে। খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, ২০১৪ থেকে ২০১৬ এই দুই বছরে তিনি ২২০ দিন ছুটি কাটিয়েছেন! গত বছরের জুনে আবারও তার চুক্তি নবায়ন করা হয়েছে ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। এরপর গত ১৬ মাসে তিনি ছুটি কাটিয়েছেন ১৫০ দিন! অথচ প্রথম চুক্তিতে দুই বছরে ৮০ দিন ছুটি পাওয়ার কথা ছিল তার।

এখন কথা হলো, একটি সিরিজ শেষে যে সময়টুকু পাওয়া যায় তাতে ভুলত্রুটিগুলো শোধরানোর সুযোগ থাকে। সিরিজের পরপরই এই সংশোধনী পর্ব শুরু করলে সেটা আরও কার্যকর হয় বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

কিন্তু বাংলাদেশের প্রধান কোচ যেকোনো সফর শেষেই লম্বা ছুটিতে চলে যান। নতুন কোনো সিরিজের আগে যে ক্যাম্পের আয়োজন করা হয় তাতেও দুই-একদিন পর যোগ দেওয়ার রেকর্ড আছে হাথুরুর।বাংলাদেশের ক্রিকেটে বলতে গেলে সার্বভৌম ব্যক্তিটির নাম চন্দ্রিকা হাথুরুসিংহে। এই শ্রীলঙ্কান কোচ বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না। একইসাথে তিনি পেয়েছেন দুর্দান্ত একটা দল; দুর্দান্ত কিছু ক্রিকেটার কিংবা মাশরাফির মত একজন অধিনায়ক। তা না হলে এতটা সাফল্য পাওয়া নিশ্চয়ই সম্ভব ছিল না। কোনো সিরিজ শেষে ক্রিকেটারদের যখন বিশ্রামের পাশাপাশি ভুল ত্রুটিগুলো শোধরানো দরকার, তখন প্রধান কোচের এমন ছুটিতে থাকা ভালো চোখে দেখছেন না বিসিবির ঊর্ধ্বতনরাও।

তবে বিসিবি সভাপতিসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা বলেছেন, তাকে নিয়ম মেনেই ছুটি দেওয়া হয়। আর সাধারণের ভাষ্য, দক্ষিণ আফ্রিকায় এমন বিপর্যস্ত হয়ে পড়া শিষ্যদের রেখে ছুটিতে যাওয়টা খুব দরকার ছিল? কয়েকদিন পর গেলে হতো না?

Check Also

গার্দিওয়ালার অধীনে আবারও যাবেন মেসি?

নিউজ ডেস্ক  : নির্ঘুম রাত কাটছে মেসি ভক্তদের। ক্লাবের সবচেয়ে বড় তারকা যে আনুষ্ঠানিক জানিয়ে …

%d bloggers like this: