Home / অর্থনীতি / ২০১৭ টালমাটাল ছিল ব্যাংকিং খাত

২০১৭ টালমাটাল ছিল ব্যাংকিং খাত

নিউজ ডেস্ক : বেসরকারি ব্যাংকের অনিয়মের জেরে একের পর এক রদবদল ক্ষত এঁটেছে এ খাতে। তেমন কোনো সুখবর আসেনি রিজার্ভ চুরির অর্থ উদ্ধারেও।

জানুয়ারির শেষদিকে, বাংলাদেশ ব্যাংক বেসরকারিখাতে ১৬ দশমিক ৫ শতাংশ এবং সরকারি খাতে ১৫ দশমিক ৯ শতাংশ ঋণপ্রবাহ ধরে বছরের প্রথমার্ধের মুদ্রানীতি ঘোষণা করে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের কথা থাকলেও তা আর হয়নি নানা অজুহাতে। চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার দেড় কোটি ডলার ফেরত পাওয়া গেলেও বাকি অর্থ ফেরতে হয়নি কোনো অগ্রগতি।

ডিসেম্বরে ফিলিপিন্সের আরসিবিসি ব্যাংকের বিরুদ্ধে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংককে সাথে নিয়ে মামলা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বছরের মাঝামাঝিতে ব্যাংক খাতে আমানতের সুদহার ৫ শতাংশের নীচে নেমে আসে। ঋণপ্রবাহে ধীরগতির কারণে জুলাই মাসের শেষদিকে,কিছুটা কমিয়ে ব্যক্তিখাতে ১৬ দশমিক ২ শতাংশ এবং সরকারি খাতে ১২দশমিক ১শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরে বছরের ২য় মুদ্রানীতি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

কয়েকবছরের ধারাবাহিকতায় এবছরেও বাড়তে থাকে খেলাপি ঋণের পরিমাণ। সরকারি-বেসরকারি মিলে ১৩ টি ব্যাংকের নাজুক আর্থিক চিত্র উঠে আসে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পর্যবেক্ষণে।

বাজেটেও রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি মেটাতে বরাদ্দ রাখা হয় ২ হাজার কোটি টাকা। এবছর বেসরকারি ব্যাংকের নীতি বহির্ভূত ভাবে মালিকানা পরিবর্তন ব্যাংক খাতে অস্থিরতা যোগ করে।

সেইসাথে পর্ষদে এক পরিবারের পরিচালকের সংখ্যা ও মেয়াদ বাড়ানোর উদ্যোগের সমালোচনা ছিল নানা মহলে।

বছরের শেষদিকে সরকারি বেসিক ব্যাংকের কয়েক হাজার কোটি টাকা লোপাটের মূলহোতা আবদুল হাই বাচ্চুকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।

নিয়ন্ত্রণহীণ ঋণে তারল্য ঘাটতিতে থাকা ফার্মার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদত্যাগের পাশাপাশি পর্ষদে বেশকিছু পরিবর্তন আসে।

ডিসেম্বরে আর্থিক অনিয়ম ও দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগে বেসরকারি এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ রদবদল হয় বেশকয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পদে।

Check Also

ডিএসইতে ১৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন

নিউজ ডেস্ক: একদিন উত্থানের পর টানা চার কার্যদিবস ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূচকের পতন হয়েছে। সপ্তাহের …

%d bloggers like this: