Home / আর্ন্তজাতিক / সেলফি তুলতে পা ভেঙে বসানো হলো সিংহের বাচ্চাকে

সেলফি তুলতে পা ভেঙে বসানো হলো সিংহের বাচ্চাকে

নিউজ ডেস্ক: রাশিয়াতে পর্যটকদের সেলফি তুলতে অসুবিধা হওয়ায় ভেঙে দেয়া হলো সিংহ শাবকের পা। যতবারই ক্যামেরা সেট করছেন, ছুটে পালিয়ে যাচ্ছে সিংহ ছানা। এতে বিরক্ত পর্যটকেরা! আর তাই পর্যটকদের খুশি রাখতে এমন কাজ নির্মম কাজটি করেন দেশটির একদল অসাধু ব্যবসায়ী। যাতে সেলফি তোলার সময় ছোটাছুটি না করে।

ক্রমাগত পিটিয়ে ওই সিংহ শাবকে পা ভেঙে বেঁধে রাখা হয়। রাশিয়ার একটি সমুদ্র সৈকতের বিনোদন পার্কে এই ঘটনাটি ঘটেছে। অমানবিক ও নৃশংস এই ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এমন খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম নিউজ এইট্টিন।

ওই খবরে বলা হয়, সিংহ শাবকটির নাম সিমবা। কয়েক মাসের সিমবাকে কেড়ে আনা হয় তার মায়ের কাছ থেকে। এরপর সামনের পা দু’টো ভেঙে বেঁধে রাখা হয় একটি বিনোদন পার্কে। যাতে পর্যটকেরা তার সঙ্গে নির্বিঘ্নে সেলফি তুলতে পারেন। সিমবা যেন কোনো ভাবেই ছুটে না পালিয়ে যায়। এইভাবে বড় হতে থাকে সিমবা। সম্প্রতি একটি পশুপ্রেমী সংগঠন তাকে উদ্ধার করে।

সংগঠনের পক্ষ থেকে ইউরিয়া আগিভা জানান, ‘বলা চলে এই সিংহ শাবকটিকে খেতেই দিতো না। গায়ে ঢেলে দেয়া হত বরফ ও ঠান্ডা পানি।’

এত অত্যাচারের পর গত গ্রীষ্মে সিমবাকে ছেড়ে দিয়ে আসা হয় রাশিয়ার হাড়কাঁপানো ঠান্ডা অঞ্চল ডাগেস্তানে। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে একটি পশুপ্রেমী সংগঠন। এরপর তাকে পশুচিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। অস্ত্রোপচারের পর এখন আবার হাঁটতে পারছে সিমবা।

সিমবার বর্তমান ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করে চিকিৎসক ডালাক্যান জানান, ‘কিছু নৃশংস ফোটোগ্রাফার এইভাবে জন্তুদের ওপর অত্যাচার চালায়। এদের হাঁড় ভেঙে বসিয়ে রাখা হয় যাতে পালাতে না পারে। আর পর্যটকেরা নির্বিঘ্নে ছবি তুলতে পারে।’

Check Also

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৯ লাখ ১৩ হাজার

নিউজ ডেস্ক : বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৮৩ লাখ ২৪ হাজার …

%d bloggers like this: