Home / জাতীয় / সাধারণ ছুটিতেও চলছে ইটভাটা, ঝুঁকিতে শ্রমিকরা

সাধারণ ছুটিতেও চলছে ইটভাটা, ঝুঁকিতে শ্রমিকরা

নিউজ ডেস্কঃ মহামারি করোনায় সরকারঘোষিত সাধারণ ছুটিতে সব ধরনের অফিস-আদালত বন্ধ থাকলেও চালু রয়েছে দেশের ইটভাটাগুলো। শিশুসহ নানা বয়সী শ্রমিকরা ন্যূনতম স্বাস্থ্য সুরক্ষা ছাড়াই সেখানে কাজ করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এতে শ্রমিকদের মধ্যে করোনা ঝুঁকির আশঙ্কা করছেন পরিবেশবাদী ও স্বাস্থ্যবিদরা।

জানা গেছে, ঢাকার পাশে কেরানীগঞ্জ ও সাভার উপজেলার বেশিরভাগ ইটভাটাগুলো খোলা রয়েছে। শ্রমিকরা বলছেন, ইটভাটায় কাজ হয় মূলত এক মৌসুমি। শীতকালে শুরু হয়ে চলে বর্ষার আগ পর্যন্ত।  তাই শুষ্ক সময়ে কাজ করতে হয়। মৌসুম শুরুর দিকে তারা দাদন (অগ্রিম টাকা) নিয়ে নেন। এখন মৌসুমের শেষ সময় পর্যন্ত কাজ করা না গেলে দাদনের টাকা পরিশোধ করতে পারবেন না।

মালিক পক্ষ দাবি করছে, মৌসুম শেষের পথে। তাই শ্রমিকদের ছুটি না দিয়ে কাজ শেষ করিয়ে নিচ্ছেন।

সাভারের ধামরাই উপজেলার হাটকোরার একটি ইটভাটার একজন শ্রমিক, একই উপজেলার কাউয়াখোলা ইটভাটার আরেকজন শ্রমিক বলেন, ‘মৌসুমের শুরুতে দাদন নিয়ে রেখেছি। দাদন পরিশোধ করার জন্য কাজ করতে হবে। এখন মৌসুমের শেষ সময়। কাজ না করলে দাদন শোধ করতে পারবো না।’ তারা আরও বলেন, ‘ঠিকাদার আমাদের টার্গেট দিয়ে রেখেছেন। মৌসুম শেষ হওয়ার আগে টার্গেট শেষ করতে হবে। এজন্য কাজ করে যাচ্ছি।’

কেরানীগঞ্জ উপজেলার কেন্ডা ইউনিয়নের মা ব্রিকসের একাধিক শ্রমিক বলেন, ‘স্যানিটাইজার নেই। নেই হ্যান্ড গ্লাভসও। দেওয়া হচ্ছে না কানো মাস্কও।’

কেরানীগঞ্জের একজন বাসিন্দা বলেন, ‘বৈধ-অবৈধ মিলিয়ে অনেক ইটভাটা এই এলাকায় রয়েছে। বর্ষা আসার আগ পর্যন্ত ইটভাটাগুলোতে কাজ চলে। করোনার কারণে ছুটি হলেও এখনো বেশিরভাগই ইটভাটা খোলা। ’

ধামরাই ইটভাটা মালিক সদস্য মিলন কান্তি বলেন, ‘মৌসুম শেষ হওয়ার পথে। আরও এক সপ্তাহের মতো কাজ করার সুযোগ থাকবে। এজন্য সব স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে কাজ করানো হচ্ছে।’

পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সোবহান বলেন, ‘বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো করোনার কারণে সব কলকারখানা বন্ধ। অথচ ঢাকার চারপাশের ইটভাটাগুলো থেকে নির্গত ধোঁয়া বায়ুমণ্ডলে মিশে যাচ্ছে। পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে।’

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ খান বলেন, ‘শুধু অথনৈতিক প্রবৃদ্ধির কথা চিন্তা না করে এখন স্বাস্থ্যের বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া উচিত। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করা না গেলে আমরাও বাঁচতে পারবো না।’

এসব বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (ঢাকা অঞ্চল) মাসুদ ইকবাল মোহাম্মদ শামীম বলেন, ‘করোনার ছুটির সময় ইটভাটা বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। তবে, সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে কাজ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। আমাদের বিভাগীয় ও জেলা অফিসগুলোকে এই বিষয়ে নজরদারি করার বলা হয়েছে।’ কোথাও কোনো অনিয়ম পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

Check Also

রাতে জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) …

%d bloggers like this: