Home / জাতীয় / শেকল নিয়েই পালিয়ে এসেছে অঞ্জনা

শেকল নিয়েই পালিয়ে এসেছে অঞ্জনা

নিউজ ডেস্কঃ ‘সৎ মা’য় খালি মারে। চিক্কুর দিলে বেশি মারে, গলায় টিপ দিয়া ধরে। খিদা লাগলে ভাত দেয় না। কয়, কাউরে কিছু কইলে বস্তায় ভইরা পানিত ফিক্কা মারবো।’ ফুপিয়ে ফুপিয়ে কাঁদছিল অঞ্জনা (১০)। হাত-পা শেকলে বাঁধা। তারই ফাঁকে কথা যতটুকু বোঝা গেল তার সারমর্ম হলো এই।

ঘরে সৎ মায়ের নির্যাতনের বর্ণনা দিচ্ছিল সে। নির্যাতন সইতে না পেরে শেকলে বাঁধা অবস্থাতেই গত বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) সরিষাবাড়ী উপজেলার ডিক্রিরবন্দ গ্রামে ফুপু সেলিনা বেগমের বাড়ি অঞ্জনা পালিয়ে এসে আশ্রয় নেয়। তারাকান্দি উপজেলা সদর থেকে এতোটা পথ সে হেঁটে এসেছে বলে জানায়। সে আর সৎ মায়ের সংসারে ফিরে যেতে চায় না। পড়াশোনা করতে চায়।

অঞ্জনার বাবা রফিকুল ইসলাম। তার প্রথম স্ত্রীর সন্তান অঞ্জনা। প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে রফিকুল দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এরপরই অঞ্জনার জীবনে নেমে আসে লাঞ্ছনা-গঞ্জনা। সৎ মা বকুল বেগম অঞ্জনাকে স্কুল থেকে ছাড়িয়ে এনে সংসারের কাজে লাগায়। প্রতিবাদ করলেই শেকল দিয়ে বেঁধে রাখা হতো বলে জানায় সে। গত বুধবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে বকুল বেগম অঞ্জনাকে লাকড়ি কুড়িয়ে আনতে বলেন। অঞ্জনা নির্দেশ অমান্য করায় লাঠি দিয়ে মারধর করেন। অঞ্জনার অভিযোগ এ সময় কিল ঘুষি ও লাথি মারেন সৎ ভাই রতন, মনি ও বিপুল।

ঘটনার সত্যতা জানতে অঞ্জনার বাড়ি গিয়ে রফিকুল ইসলামের খোঁজ পাওয়া যায়নি। বকুল বেগম নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘মেয়েটি পাগল ও দুশ্চরিত্রা। তাই তাকে একটু গালাগাল করা হয়েছিল।’ শেকল দিয়ে তালাবদ্ধ করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ওর (অঞ্জনা) মাথায় ছিট আছে। ভাঙচুর করে। তাই শেকল দিয়ে হাত-পা বেঁধে রেখেছিলাম।’

তবে সৎ মায়ের সব অভিযোগ অস্বীকার করে ফুপু সেলিনা বেগম বলেন, ‘অঞ্জনা সম্পূর্ণ সুস্থ একটা মেয়ে। ওর কোনো অসুখ নেই।’  এখন থেকে অঞ্জনাকে তার সঙ্গে রাখবেন বলেও জানান তিনি।

Check Also

রাতে জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) …

%d bloggers like this: