Home / বিনোদন / বলিউড / শাহরুখের ‘‍ছম্পকছাল্লো’‍ বললে কারাগারে ঠাঁই হতে পারে!

শাহরুখের ‘‍ছম্পকছাল্লো’‍ বললে কারাগারে ঠাঁই হতে পারে!

বিনোদন ডেস্ক: শাহরুখ-করিনার ‘‍ছম্পকছাল্লো’ গানের সঙ্গে অনেকেই কোমর দোলান। অনেকেরই ‘‍রা-ওয়ান’-এর এই গান বেশ পছন্দের। তবে বাস্তবে কিন্তু ভুলেও কোনও মহিলাকে দেখে এমন মন্তব্য করবেন না। তাহলেই বিপদ! একেবারে শ্রীঘরে ঠাঁই হতে পারে।

অবাক হচ্ছেন? বাস্তবে কিন্তু সত্যিই এমন ঘটেছে।

ঘটনাটা মুম্বইয়ের থানের। ‌যদিও তা ‌যদিও শাহরুখের ‘‍রা-ওয়ান’‍ মুক্তির আগেই ঘটে, ২০০৯ সালের ৯ জানুয়ারিতে। থানের এক মহিলা অভি‌যোগ করেন, সকালে স্বামীর সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়িতে ঢোকার সিঁড়ি দিয়ে উঠতে গিয়ে আবর্জনা স্তূপে হোঁচট খান তিনি। তাঁর দাবি, অভিযুক্তই সিঁড়ির মাঝখানে ওভাবে আবর্জনা রেখে দিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, তাঁকে পড়ে যেতে দেখে ‘ছম্মকছাল্লো’ বলেও সম্বোধন করেন অভিযুক্ত। গোটা বিষয়টি বেশ অপমানজনক বলে মনে হয় তাঁর। তখনই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে যান অভি‌যোগকারিণীর। কিন্তু পুলিশ অভিযোগ নিতে অস্বীকার করলে সোজা আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি।

ভোলবদলে ‘‍সংস্কারি’ থেকে রগরগে নিহালানি!

তারপর কেটে গিয়েছে ন’বছর। সময়ের সঙ্গে একপ্রকার ধামাচাপাই পড়ে গিয়েছিল মামলাটি। এতবছর পর ফের মামলাটি আদালতে ওঠে। এক্ষেত্রে মুম্বইয়ের থানের এক আদালত স্পষ্ট জানিয়েছে ”‍এই শব্দ মহিলার সম্মানহানি করে’‍’‍‍। আর এক মহিলার উদ্দেশ্যে এই শব্দ ব্যবহার করে থানের ওই ব্যক্তি ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০৯ ধারায় অপরাধ করেছেন। ওই ব্যক্তিকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে থানে আদালত। আদালতের ব্যাখ্যা, ‘‍’‍এটি হিন্দি শব্দ। ইংরেজিতে এমন কোনও শব্দ নেই। সাধারণত এমন শব্দে কোনও মহিলাকে অপমান করা হয়। সম্মানহানি হয় তাঁর। মহিলা এতে বিরক্ত ও ক্ষুব্ধ হন। তাই তিনি শাস্তির যোগ্য।’‍’‍ প্রসঙ্গত, হিন্দিতে ‘ছম্মকছাল্লো’ বললে কোনও মহিলার শারীরিক গঠনের অশালীন ইঙ্গিত মেলে। আর সেই কারণেই এমন শব্দ ব্যবহারে লাগাম টানতে চাইছে আদালত। কিং খানের ‘রা-ওয়ান’ ছবির গানটি সুপারহিট হওয়ার পর থেকেই এই শব্দ ব্যবহারের প্রবণতাও যেন বেড়ে গিয়েছে।

Check Also

তামাকের বিরুদ্ধে “সিগারেট”

নাসিফ শুভ: স্লো পয়জন হিসেবে সিগারেট সারা বিশ্বব্যাপী পরিচিত। ধূমপানে একদিকে যেমন নিজের ক্ষতি হয়, …

%d bloggers like this: