Home / খেলাধুলা / রোহিতের মুখেও বাংলাদেশের প্রশংসা

রোহিতের মুখেও বাংলাদেশের প্রশংসা

নিউজ ডেস্কঃ তামিমের লাইভ আড্ডায় যোগ দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার ফাফ ডু প্লেসিস বাংলাদেশকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন। গতকাল তামিমের আড্ডার শেষ পর্বে যোগ দিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটার রোহিত শর্মা। বিশ্ব ক্রিকেটে বর্তমান সময়ের সেরা ওপেনারের মুখেও বাংলাদেশের প্রশংসা। জানালেন, শেষ পাঁচ বছরে বাংলাদেশ বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম ধারাবাহিক দল যারা নিয়মিত বড় বড় টুর্নামেন্টে নিজেদের মেলে ধরছে।

রোহিত বলেছেন,‘বাংলাদেশ দশ বছর বা পাঁচ বছর আগেও যেই দল ছিল…এখন অনেক উন্নতি করেছে। স্বাভাবিকভাবেই এখন চাওয়া বেড়েছে।পাশাপাশি খেলোয়াড়দের জয়ের তাড়ণা, ক্ষুধা বেড়েছে। এটা ভিন্ন বাংলাদেশ দল। এটা শুধু আমরাই বলছি না, এটা প্রত্যেকেই বলছে। বিশেষ করে এবারের বিশ্বকাপে (২০১৯ বিশ্বকাপ) বাংলাদেশের পারফরম্যান্স ভালো ছিল। সাথে শেষ দুই-তিন বছরে যেসব টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ খেলেছে প্রত্যেকটিতে ভালো করেছে।’

২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিল। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশ গিয়েছিল সেমিফাইনালে। ২০১৯ বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের সম্ভবনা থাকলেও শেষ পর্যন্ত খেলা হয়নি। তবে বৈশ্বিক টুর্নামেন্টগুলোতে বাংলাদেশ দাপটের সঙ্গেই পারফর্ম করেছে। আইসিসির শেষ তিন ইভেন্টেই রোহিত শর্মা ভুগিয়েছেন বাংলাদেশকে। ২০১৫ সালে মেলবোর্নে করেছিলেন ১৩৭ রান। ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে করেছিলেন ১২৩। শেষ বিশ্বকাপে ১০৪। বাংলাদেশকে পেলেই রোহিত শর্মার ব্যাট যেন হয়ে উঠে সেনাপতির তরবারি। তাইতো লাইভ আড্ডায় তামিম রোহিতকে বলেন,‘বাংলাদেশের মানুষ আপনাকে খুব পছন্দ করে কিন্তু আপনি আমাদের সঙ্গে যা করেন, সেটা ঠিক না!’

শুরুতে রোহিত তামিমের কথা বুঝতে পারেননি। খুব সিরিয়াস হয়ে গিয়েছিলেন। পরে তামিম মনে করিয়ে দেন, শেষ তিন ইভেন্টেই তিন সেঞ্চুরির কথা। এরপর রোহিত হাসি মুখে নিজের উত্তর দেন এভাবে,‘সবাই জেতার জন্যই খেলে। দলের সবাই একশ ভাগ দিতে চায়। আমিও আমার কাজটাই করেছি শুধু।’

বিশ্বকাপে মুস্তাফিজের বলে রোহিত ক্যাচ তুলেছিলেন। মিড উইকেটে সেই ক্যাচ ফেলেছিলেন তামিম। তামিমের ক্যাচ মিসের স্মৃতি মনে আছে রোহিতের। সেই ম্যাচের স্মৃতিচারণ করে ভারতের ওপেনার বলেন,‘আমি যখন সুযোগটি পেয়েছিলাম তখন মনে হয়েছে আমার এটা পূর্ণ ব্যবহার করতে হবে। আমি প্রথম সুযোগে পারিনি। এটার ব্যবহার করা আমার দায়িত্ব। মাঠে কেউ ক্যাচ ফেলতে যায় না। খারাপ খেলতে যায় না। হয়ে যায়। এজন্য দ্বিতীয় সুযোগগুলো সদ্ব্যবহার করতে হয়।’

Check Also

করোনা পেরিয়ে আলোর ঝলকানি

নিউজ ডেস্কঃ বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের জন্য ৮১ হাজার দর্শকের এক স্লোগাণ,‘ইউ উইল নেভার ওয়াক অ্যালোন।’ কিন্তু …

%d bloggers like this: