Home / আর্ন্তজাতিক / রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ব্যবস্থা নেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ব্যবস্থা নেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: স্থানীয় সময় সোমবার মিয়ানমারের রাজধানী নেপিদোয় অনুষ্ঠিত ১৩তম এশিয়া-ইউরোপ বৈঠকে (আসেম) ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইইউ প্রতিনিধিরা বলেন, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে সেনাবাহিনীর অত্যাচারে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের নিজ বাসভূমিতে নিরাপদে প্রত্যাবর্তনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ সময় মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতন চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে বলে উল্লেখ করা হয়।

রোহিঙ্গাদের প্রকৃত জন্মভূমি রাখাইন উল্লেখ করে ইইউ প্রতিনিধিরা বলেন, মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায়, নিরাপত্তা ও সম্মানের সঙ্গে তাদের নিজ বাসভূমিতে ফিরিতে নিতে হবে। এ ছাড়া রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ানমার সমঝোতার স্মারকে স্বাক্ষর করবে বলে ইইউ প্রতিনিধি ফেদেরিকা মোঘেরিনি আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে সমঝোতার বিষয়ে ইইউয়ের সর্বোচ্চ সমর্থন থাকবে। আর আগামী দিনগুলোতে এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে থাকবেন তাঁরা।

আজকের আসেম বৈঠকের আগে মিয়ানমারের কয়েক মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেন ইইউয়ের প্রতিনিধিরা। এ বিষয়ে ফেদেরিকা বলেন, ‘আলোচনা আশাব্যঞ্জক ছিল। আনান কমিশনের প্রতিবেদন বাস্তবায়নের বিষয়ে আমরা কথা বলেছি।’ আর ওই প্রতিবেদন বাস্তবায়নে মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি।

বাংলাদেশের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আর্থিক সহায়তার অর্ধেকের বেশি আসে ইইউয়ের তহবিল থেকে। বাংলাদেশের সরকার ও জনগণের পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের এ সাহায্য চালিয়ে যাওয়া হবে বলে জানান ফেদেরিকা।

এদিকে, বেশ কিছু দিন ধরে রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে আলোচনা চলছে। আলোচনায় সুষ্ঠ সমাধানে সব সময়ই পাশে থেকেছে ইইউ।

গত ২৫ আগস্ট রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। এতে গণহত্যা, গণধর্ষণ, নির্যাতনের অভিযোগ এনেছে বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা। এরপর থেকে প্রাণভয়ে ছয় লাখ ২০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছে। এই ঢল এখনো বন্ধ হয়নি।

Check Also

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৯ লাখ ১৩ হাজার

নিউজ ডেস্ক : বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৮৩ লাখ ২৪ হাজার …

%d bloggers like this: