Home / সাক্ষাৎকার / ‘ভোক্তা সুবিদার্থে আমদানিকৃত টাইলসের শুল্ক কমাতে হবে’

‘ভোক্তা সুবিদার্থে আমদানিকৃত টাইলসের শুল্ক কমাতে হবে’

এইচ.এস.এম তারিফ : একবিংশ শতকের শুরুতে ২০০০ সালের দিকে এ দেশে সিরামিক টাইলস ব্যবহারের ব্যাপক বিস্তৃতি বা প্রচলন ঘটে। এ সময় বহুগুণ বেড়ে যায় টাইলস বিক্রি অর্থাৎ ব্যবসাও বাড়ে। শুধু সিরামিক পণ্য বিক্রির জন্যই গড়ে ওঠে হাজার হাজার দোকান। আছে এসবের শোরুমও। এর খুচরা ও পাইকারি ব্যবসা শুরু হয় জেলা, এমনকি থানা পর্যায়েও।

সিরামিক টাইলসে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা ও প্রতিবন্ধকতার বিস্তারিত চাল-চিত্র তুলে ধরেছেন সিরামিক টাইলস আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান আইম্যাক্স এর কর্নধার মোঃ গোলাম রাব্বানী রিপন।

সিরামিক টাইলসের চাহিদার প্রসঙ্গে তিনি বলেন,  মূলত দেশে আবাসনশিল্প বিকাশের সঙ্গে সঙ্গেই সিরামিক টাইলসের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়া শুরু করে। দেশে নতুন তৈরি ভবনগুলো দেখলে সহজেই সিরামিকের টাইলসের প্রসার সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। এ নিমার্ন সামগ্রী প্রথম দিকে একটু ধীরে প্রসার পেলেও পরবর্তী সময়ে এর বিকাশ ঘটে খুবই দ্রুত। বাংলাদেশে দেশীয় সিরামিক টাইলস ছাড়াও চিনা টাইলসের চাহিদা ব্যাপক। দেশের গ্রামীন অঞ্চল গুলোয় নিন্মবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেনীর ক্রেতা দেশীয় সিরামিক টাইলস ব্যবহার করে, এবং শহরে মধ্যবিত্ত ও উচ্চ বিত্ত শ্রেনীর ক্রেতারা আমদানিকৃত টাইলস ক্রয় করে। সিরামিক টাইলস উৎপাদনকারী দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো নিরন্তন আন্তর্জাতিক মানের পন্য উৎপাদনের চেষ্ঠা করে যাচ্ছে।

সিরামিক টাইলসের স্থানীয় উৎপাদন নিয়ে আইম্যাক্স এর কর্নধার মোঃ গোলাম রাব্বানী রিপন বলেন, বাংলাদেশে স্থানীয় পর্যায়ে উৎপাদিত সিরামিক টাইলস দেশের চাহিদার প্রায় ৬০ ভাগ পূরন করতে সক্ষম। আর বাকি চাহিদা আমদানিকৃত টাইলস দ্বারা পূরন করা হচ্ছে। তবে দিনে দিনে স্থানীয় ভাবে সিরামিক টাইলস উৎপাদন সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বেশ পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে।

এ ব্যবসায়ির মতে স্থানীয় টাইলস উৎপাদনে প্রতিবন্ধকতা হচ্ছে পর্যাপ্ত বিনিয়োগের অভাবে। মান সম্মত টাইলস উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি অভাব প্রকট। ক্রেতাদের রুচি অনুসারে টাইলস তৈরির জন্য দক্ষ জনবল সংখ্যা নগন্য। আর বিশেষ করে এ খাতে উন্নতির জন্য প্রয়োজন জ্বালানী গ্যাস, যা বর্তমানে চাহিদা অনুসারে টাইলস উৎপাদনে নতুন নতুন ইন্ড্রাস্টি এগিয়ে আসার পথে বাধা হয়ে দাড়িয়েছে।

আমদানিকৃত টাইলসের হালচালে বাংলাদেশে সিরামিক টাইলসের চাহিদার প্রায় ৪০ ভাগের বেশি আমদানিকৃত টাইলস দ্বারা পূরন করা হয়। প্রায় ৮০ ভাগ চিন ও ২০ ভাগ মালোশিয়া, স্পেন এবং অন্যান্য দেশ হতে টাইলস আমদানি করা হয়। তবে টাইলস আমদানিতে শুল্ক বেশি হওয়ায় অনেক ব্যবসায়ী মুখ থুবরে পরেছে বলেও তিনি জানান।

দেশের সিরামিক টাইলসের ইন্ড্রাস্টি বৃদ্ধিতে বিনিয়োগের পরিমান বাড়ালেই সিরামিক টাইলস ব্যবসা প্রসার ঘটবে বলেও মনে করেন এ উদিয়মান ব্যবসায়ি।

তিনি বলেন, গ্যাসের সমস্যা সমাধানে সরকারকে এগিয়ে এসে দক্ষ জনবল বৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। আমদানিকৃত টাইলসে শুল্ক অনেক বেশি হওয়ায় আমদানিকৃত টাইলস ব্যাবসা হুমকির মুখে। তাই আমদানিকৃত টাইলস ব্যবসাকে বাচিয়ে রাখতে এবং ভোক্তাদের সুবিধাকে প্রধান্য দিয়ে সরকারকে আমদানি শুল্ক কমাতে হবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

কৃতঙ্গতা: এডিটরবিডিটুয়েন্টিফোরডটকম।

Check Also

কপালে থাকলে একদিন হবে: ইমতিয়াজ হোসেন

নিউজ ডেস্ক: ইমতিয়াজ হোসেন তান্না – ঘরোয়া ক্রিকেটে বড় পারফরমারদের একজন। সদ্য শেষ হওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার …

%d bloggers like this: