Home / আর্ন্তজাতিক / বুথফেরত জরিপ বিশ্বাস করছেন না বিজেপিরই অনেকে

বুথফেরত জরিপ বিশ্বাস করছেন না বিজেপিরই অনেকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে আবার ক্ষমতায় আসতে যাচ্ছে মোদির বিজেপি। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গড়তে চলেছে বিজেপির নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট (এনডিএ)। একাধিক ‘এক্সিট পোল’ বা বুথফেরত জরিপে এমনটাই তথ্য দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু খোদ বিজেপিরই অনেক নেতা বিশ্বাস করছেন না এ জরিপ।

জরিপ বিশ্বাস না করাদের মধ্যে অন্যতম নিতিন গডকড়ী। অনেক দিন ধরেই পরোক্ষে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহদের সমালোচনা করে আসছিলেন। যা দেখে অনেকেই মনে করেন, বিজেপির সংখ্যা কম হলে মোদির বদলে তিনিই প্রধানমন্ত্রী পদের দাবিদার।

সোমবার আরএসএসের শীর্ষ নেতা ভাইয়াজি জোশীর সঙ্গে নাগপুরে তার বৈঠক হয়। তাতেও ফের জল্পনা চড়েছে। তা হলে কি ভবিষ্যতের কোনও রণকৌশল তৈরি হচ্ছে? প্রধানমন্ত্রীর দাবি পেশের জন্য না কি দলের পরবর্তী সভাপতি হওয়ার জন্য?

গডকড়ী বলেন, বুথফেরত জরিপ শেষ অঙ্ক নয়। এটি একটি ইঙ্গিত। যদিও এরই সঙ্গে জুড়েছেন, দেশের জনতা বিজেপি ও নরেন্দ্র মোদির পাঁচ বছরের কাজের উপর ভরসা রেখে ভোট দিয়েছেন। নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে এনডিএর সরকার হবে।

এছাড়া জরিপের ফল নিয়েও উচ্ছাস করতে দেখা যায়নি বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতাদের। সোমবার দিনভর চুপ ছিলেন মোদি ও অমিত শাহরা। মঙ্গলবার বিদায়ী সরকারের মন্ত্রী, এনডিএর শরিকদের নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

অমিত শাহের ঘনিষ্ঠ এক নেতা বলেন, বিজেপি সভাপতি যা বলার ২৩ মে আসল ফলের পরেই বলবেন। ঘরোয়া মহলে অবশ্য দলের অনেক নেতাই এখনও পুরোপুরি আশ্বস্ত নন। তাদের অনেকেই মনে করছেন, বাস্তব যা পরিস্থিতি, তাতে তিনশো পার করা কঠিন। সে ক্ষেত্রে যদি সরকার গড়ার জন্যও আরও শরিক প্রয়োজন হয়? সে কারণে এখন থেকেই আগ বাড়িয়ে উত্তেজনা দেখানো ঠিক নয়। যে-সব সমীক্ষা এনডিএ-কে তিনশো পার করিয়েছে, তাদের অনেকে আবার আসন-বিন্যাস দেখানো বন্ধ করেছে। হিসেবে গরমিল আসতেও শুরু করেছে। ফলে বিজেপি দফতরে সাজগোজ শুরু হলেও, নেতাদের উচ্ছ্বাস দেখাতে বারণ করা হয়েছে।

তবে বুথফেরত সমীক্ষা নিয়ে ফের ব্লগ লিখেছেন অরুণ জেটলি। এই সমীক্ষার ফল যে তিন দিন পর মিলতে পারে, তাল ঠুকে তেমনটি বলতে না পারলেও একে ঢাল করে গান্ধী পরিবার থেকে বিরোধীদের এক হাত নিয়েছেন তিনি।

জেটলির যুক্তি, যখন অনেক বুথ-ফেরত সমীক্ষা একই বার্তা দেয়, আসল ফলও সেই দিকেই এগোয়। যদি এই সমীক্ষার সঙ্গে আসল ফল মিলে যায়, তা হলে ইভিএম নিয়ে বিরোধীরা যে ভুয়া প্রচার চালাচ্ছিল, সেটা অসার বলে প্রমাণিত হবে। পরিবারতান্ত্রিক দল, জাতিগত দল, বাধা তৈরি করা বামেরা ২০১৪ সালেও ধাক্কা খেয়েছে, এ বারেও তাই হবে।

এর পরেই গান্ধী পরিবারকে আক্রমণ করে বলেন, কংগ্রেসের প্রথম পরিবার আর সম্পদ নয়। পরিবার ছাড়া তারা ভিড় জোটাতে পারেন না। আর পরিবার দিয়ে ভোট আনতে পারেন না।

কংগ্রেস নেতা শশী তারুর অবশ্য বলেন, সদ্য অস্ট্রেলিয়ায় বুথফেরত সমীক্ষার ফল মেলেনি। আমরা ২৩ তারিখের জন্য অপেক্ষা করব।

আম আদমি পার্টির সঞ্জয় সিংহ বলেন, যে উত্তরাখণ্ডে আমরা ভোটেও লড়িনি, সেখানেও আমাদের দলকে ৩% ভোট দেওয়া হয়েছে। স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, এ সব সমীক্ষার কোনও মূল্যই নেই। সূত্র: আনন্দবাজার।

Check Also

ট্রাম্পের অনুরোধ উপেক্ষা করেছে মার্কিন নৌবাহিনী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জাপান সফরের সময় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি অনুরোধ উপেক্ষা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী। …

%d bloggers like this: