Home / দেশজুড়ে / ঢাকা / পাকুন্দিয়ায় সাংবাদিক কুপিয়ে জখমের প্রতিবাদ ও ওসি প্রত্যাহারের দাবী

পাকুন্দিয়ায় সাংবাদিক কুপিয়ে জখমের প্রতিবাদ ও ওসি প্রত্যাহারের দাবী

মো: মুঞ্জুরুল হক মুঞ্জু: কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক ইনকিলাবের উপজেলা সংবাদদাতা ও দৈনিক শতাব্দীর কন্ঠের স্টাফ রিপোর্টার খন্দকার আছাদুজ্জামানকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখমের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও ওসি প্রত্যাহারের দাবীতে পুলিশ সুপার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের আয়োজনে গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ গেইট সংলগ্ন ঢাকা-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে প্রায় ঘন্টা ব্যাপি এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের সাথে কিশোরগঞ্জ জেলাসহ বিভিন্ন উপজেলার সিনিয়র সাংবাদিকবৃন্দ, বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দসহ সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

এ সময় সাংবাদিক খন্দকার আছাদুজ্জামানের উপর সন্ত্রাসী হামলার দ্রুত বিচার চেয়ে বক্তব্য দেন, কিশোরগঞ্জ জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি ও ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি সাইফুদ্দিন আহমেদ লেলিন, সাধারণ সম্পাদক ও ইটিভির জেলা প্রতিনিধি সাখাউদ্দিন আহম্মেদ রাজন, পাকুন্দিয়া হাইস্কুলের সভাপতি মো. শাহজাহান, হোসেনপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক হোসেনপুর বার্তার সম্পাদক প্রদীপ কুমার সরকার, একাত্তর টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি আবু তাহের, দীপ্ত টিভির জেলা প্রতিনিধি শামছুল আলম শাহীন, জেলা সাংবাদিক সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও বাংলানিউজের জেলা প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম খাইরুল, সাংবাদিক মঞ্জুরুল হক মঞ্জু। মানববন্ধনে নেতৃত্ব দেন পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রবীন সাংবাদিক এমএ রশীদ ভূঁইয়া।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি সাইফুল ইসলাম হীরু, এম. সাইদুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ আরিফুল ইসলাম আরজু, প্রচার সম্পাদক প্রভাষক তরীকুল হাসান শাহীন, সদস্য এসএএম মিনহাজ উদ্দিন, রাজন সরকার, দিলিপ রবিদাস, সাংবাদিক শাখাওয়াত হোসেন হৃদয় প্রমুখ। পরে পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের পক্ষে পরবর্তী আন্দোলনের কর্মসূচী হিসেবে জেলা পুলিশ সুপার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদানসহ চারদফা দাবী সমূহ ঘোষণা করা হয়। তন্মধ্যে সাংবাদিক আছাদুজ্জামানের উপর হামলার সুষ্ট বিচার ও অবিলম্বে সকল আসামীকে গ্রেফতার ও তার পরিবারের উপর প্রতিপক্ষের মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার, আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পাকুন্দিয়া থানার ওসি শামছুদ্দিনের প্রত্যাহার ও সকল সাংবাদিকদের সার্বিক নিরাপত্তা প্রদানের দাবী জানিয়ে কর্মসূচী ঘোষণা করেন পাকুন্দিয়া প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বিজয় টিভির জেলা প্রতিনিধি আনম তানভীর হায়দার ভূঁইয়া।

উল্লেখ্য, গত ৩১ শে আগষ্ট পৌরসভার মঙ্গলবাড়িয়া গ্রামের মৃত খন্দকার মোসাদ্দর আলীর পুত্র সাংবাদিক খন্দকার আছাদুজ্জামানের বড় ভাই খন্দকার আশরাফুজ্জামানের সাথে একই গ্রামের মৃত ছালামের পুত্র নজরুল (৩৫), আবু হানিফা (৪০) ও মেয়ে সালমার (৩৯) সাথে দীর্ঘদিন ধরে বসত বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ঘটনার দিন সকাল ১১টায় এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বাগবিত-া হয়। পূর্বপরিকল্পিত ভাবে নজরুল ও সালমাগং রামদা, লোহার রড ও লাঠি নিয়ে অতর্কিত হামলা চালালে সাংবাদিক খন্দকার আছাদুজ্জামান ফিরাইতে গেলে তাকে এলোপাথারি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। বর্তমানে তিনি পাকুন্দিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পরে একই দিনে তিনজনে আসামী করে সাংবাদিক খন্দকার আছাদুজ্জামান বাদী হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করলে প্রধান আসামী নজরুলকে গ্রেফতার করেও রাতের আধারে রহস্যজনক কারণে ছেড়ে দেয় পাকুন্দিয়া থানা পুলিশ।

Check Also

এই সৌদি প্রবাসীদের কী হবে?

নিউজ ডেস্ক  : সৌদি আরবে নতুন করে বাংলাদেশ বিমানের ল্যান্ডিংয়ের অনুমতি না মেলায় জটিলতা কাটছে …

%d bloggers like this: