Home / ঘুরে দেখা / নড়াইলে রাণী রাশমণি এস্টেটের কাচারী বাড়ী

নড়াইলে রাণী রাশমণি এস্টেটের কাচারী বাড়ী

নড়াইল প্রতিনিধি: বাংলার মহিয়সী নারী লোকমাতা রানী রাসমণির কাছারি বাড়ি ছিল, আমাদের বাংলাদেশের নড়াইল এর কালিয়া তে। নড়াইল জেলার নড়াগাতি থানার অন্তর্গত জয়নগর ইউনিয়নের নড়াগাতি নামক গ্রামে রয়েছে। উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি জানান, রাণী রাশমণি এস্টেটের কাচারি। নড়াইলের কালিয়া উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার পূর্ব দিকে নড়াইলের নড়াগাতি গ্রামের অবস্থান। এ গ্রামের নড়াইলের নড়াগাতি বাজারের সাথে লাগোয়া দক্ষিণ দিকে নড়াইলের নড়াগাতী বাঐসোনা পাকা সড়কের পশ্চিম পাশে রাণী রাশমনি এস্টেটের কাচারি বাড়ি দেখা যায়।

জানা যায় যে, ব্রিটিশ আমলে কলকাতায় রাণী রাশমণি নামে একজন জমিদার ছিলেন। তিনি তৎকালীন মকিমপুর (বর্তমান রাধানগর) পরগণার মালিক ছিলেন। নড়াগাতিতে রাণী রাসমণি এস্টেটের একটি প্রাচীন কাচারিবাড়ি আছে। ধারণা করা হয় , সম্ভবত রাণী রাসমণি তাঁর জমিদারি মকিমপুর থেকে কালিয়ার নড়াগাতিতেও বিস্তার করেন। নড়াগতি বাজার সংলগ্নে অবস্থিত প্রাচীন কাচারি বাড়িটি রাণী রাশমণি এস্টেটের কাচারি বাড়ি হিসেবে স্থানীয় লোকজনের কাছে সুপরিচিত। এটিকে আবার অমৃতনগর জমিদারির কাচারী নামে অনেকে উল্লেখ করেন।

রাণী রাশমণি এস্টেটের কাচারি বাড়ির মাঝখানে একতলা বিশিষ্ট ১টি ভবন রয়েছে। কাচারি ঘর হিসেবে পরিচিত এ ভবন থেকে প্রায় ৬.৫ মিটার পূর্ব দিকে ১টি কালী মন্দির, প্রায় ৯ মিটার দক্ষিণ দিকে ধ্বংসাবশেষের ১টি ঢিবি এবং প্রায় ৩৫ মিটার উত্তর-পূর্ব দিকে একটি প্রাচীন পুকুর রয়েছে।

এ কাচারি বাড়ির দক্ষিণাংশে বিদ্যমান ধ্বংসাবশেষের ঢিবিটি রয়েছে। ঢিবিটির আয়তন প্রায় ৪৫০ বর্গ মিটার। এ ঢিবিটি পার্শ্ববর্তী সমতল ভূমি থেকে প্রায় ১ মিটার উঁচু। সম্ভবত এ ধ্বংসাবশেষের ঢিবিটি তৎকালে নীলকরদের নীল প্রক্রিয়াজাতকরণের স্থান বা নীল জাগের হাউজ ছিল। এ স্থানে প্রায় ৬০ সে.মি. পুরু দেয়ালের অংশবিশেষ দেখা যায়। সংরক্ষিত পুরাকীর্তি ঘোষণা করে সংস্কার-সংরক্ষণ করা হলে এটি এ অঞ্চলের একটি অন্যতম ‘ঐতিহ্য পর্যটন’ কেন্দ্রে পরিণত হতে পারে।

তথ্যসূত্র: প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের ২০১৪-১৫ অর্থবছরের নড়াইল জেলার জরিপ প্রতিবেদন। বিশ্বের অন্যান্ন দেশে যা সংরক্ষণ করা হয়, আমাদের দেশে তা নিশ্চিহ্ন করা হয়।

Check Also

নড়াইলের ভাগ্যবিড়ম্বিত ভূমিপুত্র কমল দাশগুপ্তঃ চরম অবহেলিত ও উপেক্ষিত সঙ্গীত প্রতিভা!!

উজ্জ্বল রায়: নড়াইলের কালিয়ার বেন্দা গ্রামের ভাগ্যহত সন্তান কমল দাশগুপ্ত। জন্মেছিলেন ১৯১২ সালের ২৮ জুলাই …

%d bloggers like this: