Home / বিনোদন / টেলিভিশন / নিয়ম ভেঙে শুটিংয়ে শিল্পী সংঘের সভাপতি সেলিম

নিয়ম ভেঙে শুটিংয়ে শিল্পী সংঘের সভাপতি সেলিম

নিউজ ডেস্কঃ করোনা সংক্রমণ রোধে সব ধরনের শুটিং বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে টেলিভিশন সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো। কিন্তু এ নিষেধাজ্ঞা ভেঙে বিজ্ঞাপনের শুটিং করলেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সভাপতি শহীদুজ্জামান সেলিম।

গত মঙ্গলবার নগরীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় একটি সুপারশপের ওভিসির (অনলাইন ভিডিও কমার্শিয়াল) শুটিং করেন তিনি। বুধবার বিজ্ঞাপনটি প্রকাশের পর সমালোচনার মুখে পড়েন এ অভিনেতা। শিল্পী সংঘের অন্যতম নেতার শুটিংয়ের খবরে তৈরি হয়েছে বিব্রতকর পরিস্থিতি।

এ বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ের কথা স্বীকার করে শহীদুজ্জামান সেলিম বলেন—এই সুপারশপটি আমার বাসার পাশেই। গত ১১ মে সেখানে বাজার করতে গিয়েছিলাম। তখন এর মালিক আমাকে অনুরোধ করে বলেন, সেলিম ভাই, আমাদের ফেসবুক পেজের জন্য আপনি একটু কথা বলে দেন। তখন আমি জিজ্ঞাসা করি কী কথা ভাই? তিনি বলেন, আপনি যে সচেতনভাবে নিরাপদে বাজার করতে ঢুকলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে। মূলত নিরাপদ থেকেই এখানে বাজার করতে পারলেন, সেটাই একটু বলবেন। এ অবস্থায় সচেতনতার কথা বলেছিলাম। কিন্তু ফেসবুকের ভিডিওটা নিয়ে অনেকেই জল ঘোলা করার চেষ্টা করছেন।

‘আয়োজন করে শুটিংয়ে অংশ নেইনি। বাসার পাশে ওই বিপণিবিতানে কেনাকাটা করতে গেলে প্রতিষ্ঠানের মালিকের অনুরোধে কাজটি করেছিলাম। বিনিময়ে কোনো পারিশ্রমিক নেইনি। ভিডিওটি পরিচালনা কে করছে কিংবা এতে আর কে কে অংশ নিয়েছে কিছুই জানতাম না। ক্যামেরার সামনে বাইট দিয়ে বাজার করে বাসায় ফিরে আসি।’ বলেন সেলিম।

বিজ্ঞাপনের দৃশ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিপণিবিতানে ঘুরে ঘুরে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনার ফাঁকে দর্শকদের বিভিন্ন পণ্যের সঙ্গে পরিচয় করাতে দেখা গেছে তাকে। ছোট পর্দার নির্মাতা সাখাওয়াত মানিকের পরিচালনায় এতে আরো অংশ নিয়েছেন নিরব, আমান রেজা, শিরিন শিলাসহ বেশ কয়েকজন অভিনয়শিল্পী।

গত ১১ মে নাট্যনির্মাতা আদিবাসী মিজান পূবাইলের একটি শুটিং বাড়িতে নাটকের শুটিং শুরু করেছিলেন। পরে সংগঠনগুলোর হস্তক্ষেপে শুটিং বন্ধ করেন তিনি। গত ৭ মে কয়েকজন কলাকুশলী আন্তঃ সংগঠনের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে মিউজিক ভিডিওর শুটিং করেছিল। বিষয়টি জানতে পেরে সংশ্লিষ্ট কলাকুশলীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়, সেই সঙ্গে শুটিংয়ের ফুটেজ জব্দ করা হয়।

এর আগে ২২-৩১ মার্চ পর্যন্ত সব ধরনের টিভি নাটকের শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সংগঠনগুলো। এরপর কয়েক দফায় সরকারি ছুটির সঙ্গে সমন্বয় রেখে শুটিং বন্ধের সময় বাড়ানো হয়েছে। সবশেষ ১৬ মে পর্যন্ত তা বাড়ানো হয়। চলমান লকডাউনের মধ্যে কোনো নির্মাতা-অভিনয়শিল্পী শুটিং করলে তা সাংগঠনিকভাবে প্রতিহত করা হবে বলে জানিয়েছেন ডিরেক্টরস গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক এস এ হক অলিক।

 

Check Also

মায়ের মৃত্যুর একদিন পরই শুটিংয়ে মল্লিক

বিনোদন ডেস্ক : সবাইকে হাসাতেই পর্দায় আসতেন তিনি। সেই কাঞ্চন মল্লিকের মায়ের মৃত্যুর পর পেশাদারিত্বের …

%d bloggers like this: