Home / আর্ন্তজাতিক / নারী সহকারীকে কি কিনতে বাধ্য করেছিলেন ব্রিটিশ মন্ত্রী?

নারী সহকারীকে কি কিনতে বাধ্য করেছিলেন ব্রিটিশ মন্ত্রী?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে নারী সহকারীদের যৌন কেলেঙ্কারির ঘটনা নতুন কিছু নয়। তবে প্রকাশ্যে তা স্বীকার করে নেওয়ার মতো উদাহরণ বিরল। এবার এমন কীর্তিকলাপের কথা বেশ ফলাও করেই বললেন ব্রিটিশ মন্ত্রী মার্ক গার্নিয়ার। সংবাদমাধ্যমের সামনে ওই মন্ত্রী স্বীকার করেন, মহিলা সহকারীকে দিয়ে ‘সেক্স টয়’ কিনিয়েছিলেন তিনি।

জানা গেছে, এ ঘটনাটি ২০১০ সালের। বড়দিনের খাওয়াদাওয়ার পর সহকারী কেরোলিন এডমন্ডসকে নিয়ে উপহার কিনতে বেরিয়ে পড়েন মার্ক। একটি দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে তিনি সহকারী কেরোলিনের হাতে কিছু টাকা ধরিয়ে দেন। তারপর আদেশ করেন দুটি ‘ভাইব্রেটর’ বা এক ধরনের ‘সেক্স টয়’ কিনে আনতে। তাঁর এই কথায় হতভম্ব হয়ে পড়েন কেরোলিন।

মন্ত্রী জানান, ওই দুটি যন্ত্রের একটি তাঁর স্ত্রীকে ও অপরটি অন্য এক নারীকে উপহার দেবেন তিনি। ফলে অনিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও যন্ত্র দুটি কিনে আনেন কেরোলিন।

‘দ্য সান’ পত্রিকার দাবি, এ ঘটনাটির সত্যতা স্বীকার করেছেন কেরোলিন। শুধু এই ঘটনাই নয় এক পানশালায় তাঁর সঙ্গে অশ্লীল আচরণ মন্ত্রী করেছেন বলেও জানান তিনি।

জানা গিয়েছে, মন্ত্রী মার্ক গার্নিয়ারের আচরণে ওই বছরই চাকরি ছেড়ে দেন সহকারী কেরোলিন এডমন্ডস। তবে তাঁর অভিযোগের পরই বিপাকে পড়েন অভিযুক্ত মন্ত্রী। একের পর এক শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠে আসতে শুরু করে তাঁর বিরুদ্ধে। ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই মুখ বাঁচাতে মাঠে নামে ব্রিটিশ ক্যাবিনেট। তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে।

তবে এ অভিযোগের সত্যতা পুরোপুরি অস্বীকার না করলেও নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন মার্ক গার্নিয়ার। তাঁর দাবি, সহকারীকে দিয়ে সেক্স টয় কিনিয়েছিলেন তিনি। তবে কোনো সময়ই শ্লীলতাহানির মতো কোনো কাজ তিনি করেননি।

তবে মন্ত্রীর কথায় চিড়ে যে ভিজছে না, তা স্পষ্ট। তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে মন্ত্রিত্ব হারাতে হতে পারে তাঁকে। এমনকি জেলেও যেতে পারেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে পার্লামেন্টে সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন মার্ক। তারপরই ২০১৬ সালে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে’র ক্যাবিনেটে মন্ত্রী হয়ে আসেন তিনি।

Check Also

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৯ লাখ ১৩ হাজার

নিউজ ডেস্ক : বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৮৩ লাখ ২৪ হাজার …

%d bloggers like this: