Home / দেশজুড়ে / নলছিটির চার চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে জরিমান ও কারাদন্ড ১

নলছিটির চার চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে জরিমান ও কারাদন্ড ১

মোঃ আল-আমিন: ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার চার চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানকে ৬ লাখ টাকা জরিমানা ও একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সত্ত্বাধিকারীকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। মেয়াদোত্তীর্ণ রাসায়নিক উপাদান দিয়ে রোগ নির্ণয় করাসহ বিভিন্ন অনিয়মের কারণে মঙ্গলবার উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগের সহযোগিতায় র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. গাউছুল আজম এ অভিযান পরিচালনা করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সেবা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিককে ৩ লাখ টাকা, নাহার জেনারেল ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ৫০ হাজার টাকা, ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ৫০ হাজার টাকা এবং ফারাজানা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়াও ইমা মেডিসিন ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সত্ত্বাধিকারী মায়েল হোসেনকে (৪০) এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযান শেষে নলছিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস কক্ষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. গাউছুল আজম এক প্রেস কনফারেন্স করে জানান, স্থায়ী ডাক্তার ও প্রশিক্ষিত নার্স না থাকা, মেয়াদোত্তীর্ণ রি-এজেন্ট, আনবিক শক্তি কমিশনের অনুমোদন নবায়ন না করা, ক্লিনিকের ভেতরে অবস্থিত ফর্মেসীর ড্রাগ লাইসেন্স না থাকা ও অতিরিক্ত বেডসহ নানা অনিয়মের কারণে সেবা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিককে ৩ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আনবিক শক্তি কমিশনের অনুমোদন না থাকা, অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার অভিযোগে নাহার জেনারেল ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামে এই দুই প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। নোংরা পরিবেশে ল্যাব পরিচালনা করা, সার্বক্ষণিক ডাক্তার ও দক্ষ নার্স-টেকনেশিয়ান না থাকা, অব্যবস্থাপনার অভিযোগে ফারাজানা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়াও মেয়াদোত্তীর্ণ রি-এজেন্ট, স্বাস্থ্য অধিদফতর ও আনবিক শক্তি কমিশনের অনুমোদন ব্যতীত ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনার অভিযোগে ইমা মেডিসিন ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সত্ত্বাধিকারী মায়েল হোসেনকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারটি সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান, ভবিষ্যতে বিভিন্ন ক্লিনিক ও হাসপাতালে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে। তবে সেবা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক-এ অভিযান পরিচালনার সময় ক্লিনিকের মালিকরা স্থানীয় সংসদ সদস্য শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর নাম ভাঙিয়ে বিচারকার্য প্রভাবিত করার চেষ্টার করেন বলে জানান র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. গাউছুল আজম ।

Check Also

এই সৌদি প্রবাসীদের কী হবে?

নিউজ ডেস্ক  : সৌদি আরবে নতুন করে বাংলাদেশ বিমানের ল্যান্ডিংয়ের অনুমতি না মেলায় জটিলতা কাটছে …

%d bloggers like this: