Home / দেশজুড়ে / ঢাকা / ‘দেখব’ বলে উপাচার্যের আশ্বাস আসিফকে

‘দেখব’ বলে উপাচার্যের আশ্বাস আসিফকে

 

আসিফের পাশাপাশি আরেক জিএস প্রার্থী উম্মে হাবিবা বেনজীরও মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। প্রগতিশীল ছাত্রজোটের প্যানেলের প্রার্থী বেনজীর বলেছেন, এখানে সিদ্ধান্ত তার পক্ষে না এলে উচ্চ আদালতে যাবেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় আবেদন নিয়ে উপাচার্যের কার্যালয়ে যান আসিফ ও বেনজীর। উপাচার্য আসিফের কাছে জানতে চান, তিনি বর্তমানে কোনো প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন কি না? জবাবে আসিফ ‘না’ বললে উপাচার্য বিষয়টি দেখবেন বলে তাকে আশ্বস্ত করেন।

এ আর এম আসিফুর রহমান

এ আর এম আসিফুর রহমান

তিনি বলেন, “গতকাল বুধবার দুপুরে মধুর ক্যান্টিনে ডাকসুর জিএস পদে আমার প্রার্থিতা ঘোষণার সময় আমি বলেছিলাম, প্রশাসন একটি নীলনকশার নির্বাচন আয়োজন করতে যাচ্ছে। রাতেই তার ফলাফল পেলাম। কোনো কারণ ছাড়াই জিএস পদে আমার প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে। তারা বলেছে, ‘তথ্যে অসম্পূর্ণতা’র কথা। অথচ আমি সব তথ্যই দিয়েছিলাম মনোনয়নপত্রে।”

প্রার্থিতা না ফিরলে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আসিফ বলেন, “ডাকসুর সভাপতি ও উপাচার্য স্যারের কাছে আবেদনের পর তিনি বলেছেন, বিষয়টি তিনি দেখবেন। এক্ষেত্রে যদি আমি প্রার্থিতা ফিরে না পাই তবে আমি উচ্চ আদালতে যাব।

“সাংবাদিকতা ছেড়ে আমি নির্বাচনে এসেছি ছাত্রদের অধিকারের পক্ষে কথা বলতে। নির্বাচনের মাঠ থেকে আমি সরছি না।”

শীর্ষস্থানীয় একটি দৈনিকে কাজ করতেন আসিফ। ডাকসু নির্বাচনে প্রার্থী হতে ওই চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার ডাকসু নির্বাচনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে আসিফ ও বেনজীরসহ সাতজনের প্রার্থিতা বাতিল করে কর্তৃপক্ষ।

ছাত্র ফেডারেশনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি বেনজীরের মনোনয়নপত্র বাতিলের কারণ হিসেবে ভোটার তালিকায় তার নাম না থাকার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

আপিলে মনোনয়নপত্র বৈধ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন উম্মে হাবিবা বেনজীর।

এর পক্ষে যুক্তি দিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “যখন ডাকসু নির্বাচনের তফসিল হয়েছিল তখন একটা ডিপার্টমেন্টেই ভর্তি পরীক্ষা হয়েছে। ১৮ তারিখে আমার রেজাল্ট প্রকাশিত হয় এবং আমি সেখানে চান্স পাই। চান্স পাওয়ার পর ভর্তির কাজ শেষ করে ২০ তারিখে আমার হাতে পে-ইন স্লিপ পৌঁছায়।

“মাঝখানে তিন দিন ছুটি ছিল, ফলে প্রশাসনিক জটিলতার জন্য আমার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। এটার জন্য তো আমি বঞ্চিত হতে পারি না। আমি আপিল করেছি তাই। আপিলে সাড়া না দিলে পরবর্তীতে আইনের আশ্রয় নেওয়ার সুযোগ আছে। আমরা আদালতে যাব।”

Check Also

যুবলীগ নেতার নকল ট্যাং তৈরির কারখানা সিলগালা

দেশজুড়ে ডেস্ক :  ব্রাহ্মণাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় এক যুবলীগ নেতার নকল ট্যাং তৈরির কারখানা সিলগালা করে …