Home / বিনোদন / টেলিভিশন / দুরন্ত টিভির পর্দায় প্রচারিত হচ্ছে পুতুলনাটকের ধারাবাহিক ‘খাট্টা মিঠা’

দুরন্ত টিভির পর্দায় প্রচারিত হচ্ছে পুতুলনাটকের ধারাবাহিক ‘খাট্টা মিঠা’

বিনোদন ডেস্ক: দেশের প্রথম শিশুতোষ চ্যানেল দুরন্ত টিভিতে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পুতুলনাটকের ধারাবাহিক ‘খাট্টা মিঠা’। বাংলাদেশের পুতুলনাট্য গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্রর পরিবেশনায় এবং ডাংগুলির প্রয়োজনায় নির্মিত খাট্টা মিঠা প্রচার হচ্ছে প্রতি শুক্র, শনিবার।

‘খাট্টা মিঠা’ পুতুলনাট্যের ধারণা, গবেষণা ও সৃজন করেছেন ড. রশীদ হারুন। বাংলাদেশে প্রথমবারের মত এই ধরনের সুতারপুতুলের শিশুতোষ ধারাবাহিকটি পরিচালনা করেছেন মিথুন হাসান ও মোহাম্মদ আলী।

এ দেশের মানুষ, পশুপাখি, কীটপতঙ্গ প্রভৃতির চেনা আদলের সুতা দ্বারা সঞ্চলমান পুতুল এবং বাস্তব প্রকৃতির অভূতপূর্ব রসায়নে সৃজিত হয়েছে ‘খাট্টা মিঠা’ ধারাবাহিক পুতুলনাটকের গল্প। পুতুলের বর্ণিল ও ছন্দময় দেহভাষা আর গীতময় নাকিসুরের বিচিত্র কণ্ঠাভিনয়ে পরিবেশিত হবে খাট্টা ও মিঠার নানা কর্মকাণ্ড এবং মিঠার নানির অপূর্ব গল্প বলা। নানির গল্প বলা দেখে মনে হতে পারে বাঙ্গালির চিরায়ত গল্প দাদু বা ঠাকুরমার কথা।

সম্পূর্ণ দেশীয় পুতুল, দেশীয় আঙ্গিকে পরিবেশনা, বিচিত্র চরিত্রের মানুষ ছাড়াও প্রকৃতির অন্যান্য প্রাণী পুতুলের (বাঘ, ভালুক, গরু, বানর, সজারু, খরগোশ, পাখি, ব্যাঙ, মশা ইত্যাদি) অংশগ্রহণে ভিন্নতা ও বৈচিত্র্য রয়েছে প্রতি পর্বের গল্পে। চরিত্রের তালিকায় কিন্তু রাক্ষস, ভূত, পরী প্রমুখও আছে।
বাংলাদেশে এ ধরণের পুতুলনাট্য নির্মাণ এই প্রথম। শিশুর কল্পরাজ্যের চরিত্ররা পুতুলের গঠনে উপস্থিত হয়ে যে সকল ঘটনা ও কর্মকাণ্ড ঘটাবে তা দেখে শিশুরা মজা খুশি আনন্দ-লাভের আড়ালে প্রতিটি গল্পেই পাবে কিছু না কিছু।

খাট্টা মিঠার প্রসঙ্গে ড. রশীদ হারুন বলেন, ‘পুতুল মানুষের চিরকালীন সঙ্গী। এমন কোন জাতি গোষ্ঠী ধর্ম বর্ণের মানুষ পাওয়া দুস্কর যারা শিশুর কান্না থামিয়ে মুখে হাসি ফোটানোর জন্য তাদের হাতে পুতুল তুলে দেন না। ইতিহাস ও প্রামান্য দ্বারা স্বীকৃত যে ভারতবর্ষ পুতুলনাট্যের আদিভূমি এবং বাংলাদেশেও পুতুলনাট্যের ঐতিহ্য হাজার বছরের। দেখা গেছে এই ভূখণ্ডে একদা বিনোদন ছাড়াও ধর্মীয় ও লোকশিক্ষার অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম ছিল পুতুলনাটক।খাট্টা মিঠার পরিচালক মোহাম্মদ আলী বলেন, আমরা চেষ্টা করেছি শিশুদের জন্য ভাল কিছু নির্মাণের, যেহেতু দেশীয় সুতাপুতুল নিয়ে এই ধরনের কাজ এটাই প্রথম। তাই কাজটা করতে আমরা অনেক নতুন ধরনের অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছি। রশীদ হারুন স্যারের ঐকান্তিক সাহস যোগানো আর পরামর্শ আমাদের খাট্টা- মিঠা নির্মাণের সাহস জুগিয়েছে। পুরো কাজটি করতে বিশাল একটা টীম দীর্ঘ দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে। এখন ‘খাট্টা মিঠা’ শিশুদের বন্ধু হয়ে উঠতে পারলেই আমাদের শ্রম সার্থক মনে করব।

‘খাট্টা মিঠা’ প্রচার হচ্ছে দুরন্ত টেলিভিশনে প্রতি শুক্র ও শনিবার সন্ধ্যা ৬টা ও রাত সাড়ে ৮টায়।

Check Also

তামাকের বিরুদ্ধে “সিগারেট”

নাসিফ শুভ: স্লো পয়জন হিসেবে সিগারেট সারা বিশ্বব্যাপী পরিচিত। ধূমপানে একদিকে যেমন নিজের ক্ষতি হয়, …

%d bloggers like this: