Home / দেশজুড়ে / ঝালকাঠিতে গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের ২৮ টি পদ শুন্য

ঝালকাঠিতে গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের ২৮ টি পদ শুন্য

মোঃ আল-আমিন: ঝালকাঠিতে বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের ২৮ টি পদ শুন্য রয়েছে। এতে দাপ্তরিক কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ায় মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ভুক্তভোগি জনসাধারণকে।
জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সংস্থাপন শাখা সূত্রে জানাগেছে, ঝালকাঠি জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার পদ গত বছরের ৭ এপ্রিল থেকে শুন্য রয়েছে। ঝালকাঠি সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলীর চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারী থেকে শুন্য। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পদে ঝালকাঠিতে পদায়ন না থাকায় পিরোজপুর জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী ঝালকাঠির অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক’র পদটি শুন্য রয়েছে গতবছরের ২৭ নভেম্বর থেকে। পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপপরিচালকের পদটি শুন্য রয়েছে ১৯৮৪ সনের ২৯ ফেব্রুয়ারী থেকে। এ পদে ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করছেন উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা। বিদ্যুত বিভাগের ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী ঝালকাঠির নির্বাহী প্রকৌশলীর পদটি শুন্য রয়েছে চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারী থেকে। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তার পদ শুন্য রয়েছে ২০১৩ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। জেলা ক্রীড়া অফিসারের পদটি ২০১৫ সালের ৪ মার্চ থেকে শুন্য রয়েছে। আনসার ও ভিডিপি বিভাগের জেলা এ্যাডজুটেন্ট কর্মকর্তার পদ শুন্য রয়েছে ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে। জেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তার পদ চলতি বছরের ৫ জুন থেকে শুন্য রয়েছে।

জেলা সমবায় অফিসারের পদটি শুন্য রয়েছে ২০১০ সালের ৮ ডিসেম্বর থেকে। ঝালকাঠি কাস্টম এক্সাইজ ও ভ্যাট’র সহকারী কমিশনারের পদটি শুন্য রয়েছে গত বছরের ২২ নভেম্বর থেকে। জেলা প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তার পদটি গত বছরের আগস্ট মাস থেকে শুন্য রয়েছে। এছাড়াও পদ শুন্য রয়েছে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি), রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর (আরডিসি), ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা (এলএও), জেনারেল সার্টিফিকেট অফিসার (জিসিও), সহকারী কমিশনার (এসি) ৭টিসহ বনবিভাগ’র জেলা কর্মকর্তা, বিআরটিএ উপপরিচালক, আয়কর কর্মকর্তা’র।

জানা গেছে, এসব শুন্য পদের বিপরীতে ভারপ্রাপ্তের দায়িত্ব পালন করছেন বিভাগীয় কর্মকর্তা অথবা সদর উপজেলা কর্মকর্তা। প্রকৌশল অধিদপ্তরের পদশুন্য কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন অধস্তন প্রকৌশলীরা। জেলা উন্নয়ন ও আইনশৃঙ্খলা সভায় শুন্য পদের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা সঠিক সময় উপস্থিত থাকতে পারেন না। বিভাগীয় কর্মকর্তারাও অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে গিয়েও পড়েন বিপাকে। একই সময়ে বিভাগীয় সভা এবং জেলায় সভা পালনের সিদ্ধান্ত হলে তারা জেলা সভায় উপস্থিত থাকতে পারেন না। যার ফলে ওই দপ্তরের বক্তব্য জেলা সভায় উপস্থাপন না হওয়ায় সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। আবার উপজেলা কর্মকর্তা থেকে জেলা কর্মকর্তার ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অনেক সময় হিমশিম খেতে হয় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে।

এ কারণে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কার্য্য যথাযথভাবে সম্পন্ন না হওয়ায় একদিকে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডে অপরদিকে মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ওই সকল দপ্তরে প্রয়োজনের তাগিদে আসা জনসাধারনকে। এব্যাপারে জেলা প্রশাসক মোঃ হামিদুল হক জানান, জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসকগণের ৩ দিন ব্যাপী সভায় জনবল সংকটের কথা উল্লেখ করেছি। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে জনবল সংকটকে অবহিত করে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে চিঠির মাধ্যমে অবহিত করা হয়েছে।

Check Also

এই সৌদি প্রবাসীদের কী হবে?

নিউজ ডেস্ক  : সৌদি আরবে নতুন করে বাংলাদেশ বিমানের ল্যান্ডিংয়ের অনুমতি না মেলায় জটিলতা কাটছে …

%d bloggers like this: