Home / জাতীয় / জঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগ থেকেই শনাক্ত সাব্বির

জঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগ থেকেই শনাক্ত সাব্বির

নিউজ ডেস্ক: রাজধানীর দারুসসালামের বর্ধনবাড়ী এলাকায় কমল প্রভা ভবনে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান শুরুর পরই মালিকের পাইলট ছেলে সাব্বির এমামের জঙ্গি-সংশ্লিষ্টতার তথ্য পায় র‌্যাব। তখন র‌্যাবের পক্ষ থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়, সাব্বিরের পুরো পরিবারের জঙ্গি-সংশ্লিষ্টতা রয়েছে।

এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত ৫ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিমানের ফার্স্ট অফিসার সাব্বিরকে গ্রাউন্ডেড (উড্ডয়ন থেকে বিরত) রাখা হয়। এই সময়ের মধ্যে সাব্বিরের জঙ্গি-সংশ্লিষ্টতার কোনো প্রমাণ পায়নি বিমান কর্তৃপক্ষ। এ কারণে ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে তাঁকে ফের উড্ডয়নের সুযোগ দেওয়া হয়। র‌্যাব অভিযানের পর থেকেই তাঁর ওপর নজরদারি করে। তদন্তে বেরিয়ে আসে

নিহত শীর্ষ জঙ্গি সরোয়ার জাহান মানিক, আব্দুল্লাহ এবং সম্প্রতি গ্রেপ্তার হওয়া জঙ্গি বিল্লালসহ কয়েকজনের সঙ্গে সাব্বিরের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল। তিনি, তাঁর মা সুলতানা পারভীন ও মামাতো ভাই আসিফ জঙ্গিদের আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন। এসব তথ্য যাচাইয়ের পরই বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পাইলট সাব্বির এমামকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি বিমান নিয়ে হামলার পরিকল্পনার তথ্যও দেন। গতকাল বুধবার র‌্যাব ও বিমানের একাধিক সূত্র কালের কণ্ঠকে এসব তথ্য জানিয়েছে।

গতকাল সাব্বিরকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিমান কর্তৃপক্ষ। ঢাকার মহানগর হাকিম আদালত সাব্বিরের সাত দিনের এবং আরো পাঁচ আসামির বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। গতকালই তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে র‌্যাব। কোনো তদন্ত কমিটি গঠন না করা হলেও সাব্বিরের বিষয়টি বিমান কর্তৃপক্ষও খতিয়ে দেখছে।

গতকাল র‌্যাব-৪-এর অধিনায়ক লুত্ফুল কবীর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পরিকল্পনা ও যোগাযোগের তথ্য পেয়েই সাব্বিরসহ আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের জঙ্গি কানেকশনের ব্যাপারে আরো তথ্য পাওয়া যেতে পারে। এ ব্যাপারে পরবর্তী সময়ে জানা যাবে। ’

র‌্যাবের আরেকটি সূত্র জানায়, কমল প্রভা ভবনে অভিযান শুরুর পরই বাড়ির মালিক হাবিবুল্লাহ বাহার আজাদের পুরো পরিবার জঙ্গি আদর্শ গ্রহণ করেছে বলে তথ্য মেলে। তখনই জানা যায়, আজাদের ছেলে সাব্বির বিমানের পাইলট। তিনি স্ত্রী-সন্তান নিয়ে পল্লবী এলাকায় থাকেন। এ তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব বিমানকে সতর্ক করে। সাব্বির বিমানের বোয়িং-৭৩৭ উড়োজাহাজের ফার্স্ট অফিসার। তথ্য পাওয়ার পরই বিমান কর্তৃপক্ষ বিপদ এড়াতে তাঁকে বিমান চালনা থেকে বিরত রাখে। তাঁর ওপর নজরদারিও করে। তবে কৌশলে সাব্বির ওই সময় তাঁর জঙ্গি সহযোগীদের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। বিমান র‌্যাবের কাছে সাব্বিরের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট তথ্য চায়। গত ৫ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সাব্বিরকে দায়িত্ব থেকে বিরত রাখা হলেও ওই সময় র‌্যাব তদন্ত করে সুনির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণ জোগাড় করতে পারেনি। এই সময়ের মধ্যে নিজেকে নিরপরাধ দাবি করে সহকর্মীদের কাছে সহানুভূতি আদায় করে নেন সাব্বির। তবে গত ২৬ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে বিল্লাল নামে এক জঙ্গিকে গ্রেপ্তারের পরই সাব্বিরের জঙ্গি-সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পেয়ে যায় র‌্যাব। এরপর গত মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাবের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের বাসভবনে হামলার জন্যই বিপুল পরিমাণে দাহ্য পদার্থ জড়ো করা হয় কমল প্রভায়। সেখানে যে নকশাটি পাওয়া যায় সেটিও তেমন এক স্থাপনার। জঙ্গিরা পাশের পুলিশ স্টেশনে ট্রাক নিয়ে হামলার ছক কষে। তারা কিছু না করতে পারলেও বড় ধরনের পরিকল্পনাই করেছিল। সঠিক সময় অভিযান না হলে বিপদও হতে পারত। ’

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মোসাদ্দিক আহমেদ গতকাল বলেন, ‘ফার্স্ট অফিসার সাব্বির এমামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। র‌্যাব তাদের মতো করে তদন্তকাজ করছে। আমরা আমাদের বিভাগীয় ব্যবস্থা নেব। ’ তবে সাব্বিরের ব্যাপারে তদন্তে কর্তৃপক্ষ কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করেনি বলে জানান তিনি।

জানা গেছে, কমল প্রভা ভবনে সাব্বিরের মা-বাবা থাকলেও তিনি পরিবার নিয়ে পল্লবীর বি ব্লকের ৩ নম্বর সড়কের ৪৩ নম্বর বাড়ির পঞ্চম তলার এ/পি ফ্ল্যাটে থাকেন। গতকাল দুপুরে ‘নিপ্পন টোকিও ম্যানসন’ নামে ওই ভবনে গিয়ে সাব্বিরের পরিবারের কাউকে পাওয়া যায়নি। বাড়ির গেটে নিরাপত্তাকর্মী মিন্টু ও ইমাম জানান, এক বছরেরও বেশি সময় ধরে ওই বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকেন সাব্বির। সম্প্রতি তিনি তাঁর ‘স্টারলেট’ গাড়িটি বিক্রি করে দিয়েছেন। জানতে চাইলে নিরাপত্তাকর্মীরা দাবি করেন, তাঁরা গ্রেপ্তারের ব্যাপারে জানেন না। গতকাল সকাল ১০টার দিকে সাব্বিরের স্ত্রী তাঁর দুই বছরের ছেলেকে নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে গেছেন।

পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে এক প্রতিবেশী বলেন, সাব্বির ও তাঁর স্ত্রী ধার্মিক। তাঁরা প্রতিবেশীদের সঙ্গে তেমন কথা বলতেন না। তবে জঙ্গিবাদে জড়ানোর মতো কোনো আলামত কেউ দেখেনি। একজন বৈমানিকের জঙ্গি-সংশ্লিষ্টতার খবর শুনে বিস্ময় প্রকাশ করেন ওই প্রতিবেশী।

রিমান্ড মঞ্জুর : আদালত প্রতিবেদক জানান, গতকাল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাব-৪-এর এসআই আমিরুল ইসলাম ছয় আসামিকে ঢাকার মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে ১০ দিন করে রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবিব আসামি সাব্বিরের সাত দিন, তাঁর মা সুলতানা পারভীনের পাঁচ দিন এবং মামাতো ভাই আসিফ ও চায়ের দোকানদার আলমের ছয় দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এ ছাড়া ৪ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইল থেকে গ্রেপ্তার দুই আসামি শাহাদাত হোসেন ওরফে আমির হামজা ও সম্রাট মিয়াকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে রিমান্ড আবেদন করা হয়। তাঁদেরও ছয় দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে টাঙ্গাইলে ড্রোনসহ দুই সহোদরকে গ্রেপ্তারের সূত্র ধরে রাজধানীর দারুসসালামের বর্ধনবাড়ীর ২/৩-বি নম্বর কমল প্রভা বাড়িতে জঙ্গি আস্তানা শনাক্ত করে র‌্যাব। সেখানে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চালানো অভিযানের সময় আত্মঘাতী বিস্ফোরণে জঙ্গি আব্দুল্লাহ, তাঁর দুই স্ত্রী নাসরিন ও ফাতেমা, দুই ছেলে ওসামা ও ওমর এবং দুই কর্মচারী নিহত হন। বাড়িটি থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও ভবনের নকশা উদ্ধারের ঘটনায় দারুসসালাম থানায় র‌্যাব-৪ একটি মামলা করে। এ মামলায়  বাড়ির মালিক আজাদ ও জঙ্গি বিল্লাল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৯ জনকে।

Check Also

রাতে জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) …

%d bloggers like this: