Home / বিনোদন / টেলিভিশন / অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর জন্মদিন

অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর জন্মদিন

নিউজ ডেস্ক: জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর জন্মদিন সোমবার (১ জুন)। বিনোদনের সময়ের পক্ষ থেকে তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

চঞ্চল চৌধুরী মঞ্চ, টেলিভিশন, বড় পর্দা সব মাধ্যমেই নিজের অভিনয় দক্ষতার প্রমাণ দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, চঞ্চল তার কণ্ঠে গান তুলেও শ্রোতাদের মুগ্ধ করেছেন।

বাংলাদেশের পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার নজিরগঞ্জ ইউনিয়নের কামারহাট গ্রামে ১৯৭৪ সালের ১ জুন জন্মগ্রহণ করেন চঞ্চল চৌধুরী।

গ্রামের স্কুল থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক এবং রাজবাড়ী সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়াশোনা করেন। এরপর ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায়।

১৯৯৬ সালে মামুনুর রশীদের আরণ্যক নাট্যদলের সঙ্গে যুক্ত হন চঞ্চল। এর মাধ্যমে অভিনয় জীবনের শুরু। তার অভিনীত প্রথম মঞ্চনাটক আরণ্যক নাট্যদলের ‘কালো দৈত্য’। পরবর্তীতে এই নাট্যদলের ‘সংক্রান্তি’, ‘রাঢ়াঙ’, ‘শত্রুগণ’সহ অনেক নাটকে কাজ করেন।

২০০০ সালে ফরিদুর রহমান পরিচালিত ‘গ্রাস’ নাটকের মাধ্যমে টেলিভিশন নাটকে পা রাখেন তিনি। ২০০৬ সালে তৌকির আহমেদ পরিচালিত ‘রূপকথার গল্প’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে চঞ্চলের। ২০০৯ সালে গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘মনপুরা’ সিনেমায় সোনাই চরিত্রে অভিনয় করেন। এই সিনেমায় অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি। ২০১৬ সালে ‘আয়নাবাজি’ সিনেমায় শাফায়েত করিম আয়না চরিত্রে অভিনয়ে করে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘরে তোলেন চঞ্চল।

তবে সিনেমার পাশাপাশি ছোটপর্দায় দারুণ জনপ্রিয় তিনি। অসংখ্য জনপ্রিয় নাটকে অভিনয় করে চঞ্চল নিজের দখলে নিয়েছেন একটি বিশেষ শ্রেণির দর্শককে। তার উল্লেখযোগ্য সিনেমার মধ্যে রয়েছে  ‘মনপুরা’, ‘মনের মানুষ’, ‘টেলিভিশন’, ‘আয়নাবাজ ‘, ‘দেবী’।
মূলত একটি মোবাইল কোম্পানির বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়ে রাতারাতি পরিচিতি পান তিনি।

Check Also

মায়ের মৃত্যুর একদিন পরই শুটিংয়ে মল্লিক

বিনোদন ডেস্ক : সবাইকে হাসাতেই পর্দায় আসতেন তিনি। সেই কাঞ্চন মল্লিকের মায়ের মৃত্যুর পর পেশাদারিত্বের …

%d bloggers like this: